পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে...
বৃহস্পতিবার, জুন ১৩, ২০২৪

নুর চৌধুরীকে ফেরত পাঠাতে কানাডাকে বিকল্প পথ খোঁজার অনুরোধ

ছয় দফা নিউজ ডেস্ক: কানাডায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হত্যা মামলার আসামি নুর চৌধুরীকে ফেরত পাঠানোর জন্য বিকল্প পথ খুঁজতে দেশটিকে অনুরোধ জানিয়েছে বাংলাদেশ।

সোমবার (২৯ জানুয়ারি) বিকেলে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

এর আগে, তার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন ডেনমার্কের রাষ্ট্রদূত ক্রিশ্চিয়ান ব্রিকস মোলার এবং কানাডার হাইকমিশনার লিলি নিকলস। এ ছাড়া, জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থার প্রতিনিধি ক্রেডেনশিয়ালস প্রদান করেন।

কানাডার হাইকমিশনারের সঙ্গে আলোচনার বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার আসামি নুর চৌধুরীকে ফেরত পাঠানোর বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। কানাডা আইনে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিকে ফেরত দেওয়া সম্ভব না বলে আমাকে হাইকমিশনার জানিয়েছেন। আমি তাদের অনুরোধ করেছি, বিকল্প পন্থা বের করা যা কি না। তাকে বলেছি, একজন খুনিকে আশ্রয় দেওয়া মানবাধিকার লঙ্ঘন।

তিনি বলেন, আমি হাইকমিশনারকে অনুরোধ করেছি, যেসব রুলস-আইন আছে, তা যদি পর্যবেক্ষণ করে দেখি তাহলে কানাডা যাতে তাকে ফিরিয়ে দিতে পারে সে পন্থা খুঁজতে পারে। তারা বলেছেন, তাদের সরকারকে বিষয়টি জানাবে।

উল্লেখ্য, বর্তমান সরকার ক্ষমতা আসার পর থেকেই বিদেশে পলাতক জাতির জনক বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের দেশে ফিরিয়ে এনে শাস্তি কার্যকর করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। কানাডায় পালিয়ে থাকা খুনি নুর চৌধুরীকে ফিরিয়ে আনতে গত কয়েক বছর ধরে জোর তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে সরকার।

ডেনমার্কের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বৈঠকের বিষয়ে মন্ত্রী জানান, ডেনমার্ক বাংলাদেশের চট্টগ্রাম বন্দরে বিনিয়োগ করতে আগ্রহী।

হাছান মাহমুদ বলেন, ডেনমার্কের রাষ্ট্রদূত জানিয়েছেন, বাণিজ্যের ক্ষেত্রে ডেনমার্কের দ্বিতীয় উন্নয়ন অংশীদার। জলবায়ু ইস্যুতে আমরা দীর্ঘদিন ধরে ডেনমার্কের সাথে কাজ করছি। আগামীতেও এই বিষয়ে সহযোগিতা অব্যাহত রাখার বিষয় বৈঠকে আলোচনা হয়। এ ছাড়া, বাংলাদেশের ইকোনমিক জোনগুলোতে ড্যানিশ ইনভেস্টমেন্ট বাড়ানোর বিষয়েও বৈঠকে আলোচনা হয়।

মিয়ানমার থেকে সীমান্তের ১৩টি মর্টারসেল বাংলাদেশ সীমান্তে এসে পড়েছে। এ বিষয়ে বাংলাদেশ উদ্বিগ্ন কি না- এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, মিয়ানমারে দেশটির দুই পক্ষের মধ্যে সংঘাত চলছে। এই সংঘাতের মর্টার সেল আমাদের সীমান্তে এসে পড়েছে। আমরা এ বিষয়ে নজর রাখছি। আমাদের সীমান্ত রক্ষীরা সতর্ক আছেন। মিয়ানমার সরকারের সাথেও এ বিষয়ে আমরা যোগাযোগের মধ্যে রয়েছি।

রোববার ড. মুহাম্মদ ইউনুস অভিযোগ করেছেন, তার বিরুদ্ধে মামলা শ্রমিকরা করেনি, সরকার করেছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে হাছান মাহমুদ বলেন, ড. মুহাম্মদ ইউনূসের প্রতি যথেষ্ট সম্মান ও শ্রদ্ধা রেখে বলছি, তিনি (ড. ইউনূস) যা বলেছেন তা সঠিক নয়। বিস্তারিত আইনি ব্যাখ্যা আইন মন্ত্রণালয় দেবে।

তথ্যসূত্রঃরাইজিংবিডি

আরো পড়ুন

মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ সংবাদসমূহ

বিশেষ সংবাদ