পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে...
রবিবার, জুন ২৩, ২০২৪

মিয়ানমারের ৫ হাজার নাগরিকের মিজোরামে প্রবেশ, ৪৩ সেনার আত্মসমর্পণ

ছয় দফা নিউজ ডেস্ক:
মিয়ানমারের চিন রাজ্যে সোমবার সেনাবাহিনী ব্যাপক বিমান হামলা চালিয়েছে। হামলা থেকে বাঁচতে ওই রাজ্যের সীমান্তবর্তী এলাকা ভারতের মিজোরামে মিয়ানমারের পাঁচ হাজারের বেশি নাগরিক ঢুকে পড়েছে। মিজোরাম পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল লালবিকথাঙ্গা খিয়াংতে দেশটির বার্তা সংস্থা এএনআইকে জানিয়েছে। এদিকে রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, মিয়ানমারের অন্তত ৪৩ সেনা ভারতের মিজোরাম রাজ্য পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করেছেন। জান্তাবিরোধী বিদ্রোহীদের সঙ্গে তুমুল লড়াইয়ের একদিন পর এ ঘটনা ঘটে।

জেনারেল লালবিকথাঙ্গা খিয়াংতে বলেন, মিয়ানমার থেকে আসা লোকজন সীমান্তবর্তী মিজোরামে দুটি গ্রামে আশ্রয় নিয়েছেন। তাদের মধ্যে ২০ জন আহত। এর মধ্যে আটজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য আইজলে ও অন্যদের চাম্পাইয়ে নেওয়া হয়েছে। এদিকে আত্মসমর্পণ করা সেনাদের ব্যাপারে পুলিশ কর্মকর্তা লালমালসওমা হ্নমতে রয়টার্সকে বলেন, ‘তাদের ফেরত পাঠানো হবে কি হবে না, সে বিষয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের নির্দেশনার অপেক্ষায় রয়েছি।’

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের সিত্তে শহরে কারফিউ জারি করা হয়েছে। সরকারি নথিপত্র ও সংবাদমাধ্যমের খবরে এ তথ্য জানা যায়। দেশটির বিভিন্ন জায়গায় যখন সামরিক ও ক্ষুদ্র জাতিগত গোষ্ঠীর মধ্যে লড়াই চলছে, তখন এই খবর এলো।

১৩ নভেম্বর স্থানীয় প্রশাসনিক কর্তৃপক্ষের জারি করা এক নোটিসে সিত্তের বাসিন্দাদের রাত ৯টার পর বাড়ির বাইরে না যেতে এবং ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান রাত সাড়ে ৮টার মধ্যে বন্ধ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। স্থানীয় সংবাদমাধ্যম নারিনজারা নিউজ ও ওয়েস্টার্ন নিউজ কারফিউ জারি হয়েছে বলে খবর প্রকাশ করেছে। তবে এ বিষয়ে মিয়ানমার জান্তার মুখপাত্র কোনো ধরনের মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।

এদিকে রাখাইন রাজ্যের এক বাসিন্দা ও বৃহত্তর স্বায়ত্তশাসনের দাবিতে লড়াইরত আরাকান আর্মির (এএ) এক মুখপাত্রের ভাষ্য, রাখাইন রাজ্যজুড়ে লড়াই চলছে। সংগঠনটি রাথেডাং ও মিনবিয়া শহরে থাকা সামরিক চৌকিগুলো দখল করে নিয়েছে। রাথেডাংয়ের এক বাসিন্দা রয়টার্সকে গতকাল মঙ্গলবার বলেন, গতকাল রাতভর এই এলাকায় গোলাবর্ষণ হয়েছে।

সেনাসদস্যরা শহরটিতে ঢুকে পড়েছেন। লোকজন শহর ছেড়ে পালাচ্ছেন। এখন শহরে শুধু সেনাসদস্যরা আছেন।
জান্তাবিরোধী সশস্ত্রবিরোধী গোষ্ঠী গত ২৭ অক্টোবর চীনের সঙ্গে সীমান্তবর্তী শান রাজ্যে হামলা চালিয়ে কয়েকটি শহর ও শতাধিক সামরিক চৌকি দখল করে। চলতি সপ্তাহের শুরুর দিকে এই রাজ্যে কারফিউ জারি করে জান্তা। চলতি সপ্তাহে পশ্চিমাঞ্চলীয় রাখাইন ও চিন রাজ্যে নতুন করে লড়াই হয়েছে।

তথ্যসূত্রঃসময়ের আলো

আরো পড়ুন

মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ সংবাদসমূহ

বিশেষ সংবাদ