পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে...
বৃহস্পতিবার, জুন ১৩, ২০২৪

লেবাননে হিজবুল্লাহর অবস্থান ও স্থাপনায় হামলা

ছয় দফা নিউজ ডেস্ক:
উত্তরাঞ্চলের শহরগুলোতে রকেট হামলার প্রতিক্রিয়ায় লেবাননে শিয়া রাজনৈতিক ও সামরিকগোষ্ঠী হিজবুল্লাহর বিভিন্ন অবস্থান ও স্থাপনায় পাল্টা হামলা চালিয়েছে ইসরাইল। সোমবার এসব হামলা চালানো হয়েছে বলে ইসরাইলের সামরিক বাহিনী জানিয়েছে। এদিকে ইসরাইলে নতুন করে ড্রোন হামলা চালিয়েছে ইয়েমেনের হুথি বিদ্রোহীরা। খবর রয়টার্স ও এএফপির

ইসরাইলি বাহিনীর শীর্ষ মুখপাত্র রিয়ার অ্যাডমিরাল দানিয়েল হ্যাগারি সাংবাদিকদের জানান, ইসরাইলি জঙ্গি বিমানগুলো হিজবুল্লাহর বিস্তৃত লক্ষ্যে হামলা চালিয়েছে। তিনি জানিয়েছেন, ইসরাইলে যতবার হামলা চালানো হবে ততবারই ‘উল্লেখযোগ্য প্রতিক্রিয়া’ অব্যাহত থাকবে।

রোববার ইসরাইলের ছোড়া একটি ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে দক্ষিণ লেবাননে তিন শিশু ও তাদের দাদি নিহত হন। গুরুতর আহত হয় শিশুদের মা। নিহত তিনজনই মেয়েশিশু। তাদের বয়স ১০ থেকে ১৪ বছরের মধ্যে। ইরান সমর্থিত হিজবুল্লাহ ইসরাইলের এই হামলার জবাব দেওয়ার কথা তখনই জানিয়েছিল। এক বিবৃতিতে হিজবুল্লাহ জানায়, তারা কখনোই বেসামরিক নাগরিকদের ওপর হামলা সহ্য করবে না এবং তাদের জবাব হবে ‘কঠোর ও শক্তিশালী’। এ বিষয়ে হিজবুল্লাহ নেতা হাসান ফাদলাল্লাহ বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, বেসামরিক নাগরিকদের বিরুদ্ধে অপরাধের মূল্য শত্রুদের চুকাতে হবে।

এরপর হিজবুল্লাহ জানায়, তারা এ হামলার প্রতিক্রিয়ায় ইসরাইলের উত্তরাঞ্চলীয় শহর কিরিয়াত শমোনা লক্ষ্য করে বেশ কিছু গ্রাড রকেট ছুড়েছে। রয়টার্স জানিয়েছে, ইসরাইলি বাহিনীর সঙ্গে চার সপ্তাহ ধরে চলা সংঘর্ষে এই প্রথম একটি নির্দিষ্ট অস্ত্র ব্যবহার করার কথা জানাল হিজবুল্লাহ।

লেবাননের রাষ্ট্রায়ত্ত ন্যাশনাল নিউজ এজেন্সি সোমবার জানিয়েছে, দক্ষিণ লেবাননে শত্রুর একটি ড্রোন গুলি করে ভূপাতিত করেছে হিজবুল্লাহ, এর ধ্বংসাবশেষ ইসরাইল-লেবানন সীমান্ত থেকে ৩০ কিলোমিটার ভেতরে জেবদাইন ও হারউফ গ্রামের ওপর পড়েছে। তবে এই প্রতিবেদনের বিষয়ে হিজবুল্লাহ কোনো মন্তব্য করেনি কিন্তু তারা ইসরাইলে সঙ্গে চলমান সংঘাতে প্রথমবারের মতো বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করার কথা ঘোষণা করেছে।

লেবাননের নিরাপত্তা কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এ পর্যন্ত ইসরাইলের হামলায় প্রায় ৬০ জনের মতো হিজবুল্লাহ যোদ্ধা এবং অন্তত ১০ বেসামরিক নিহত হয়েছেন। লেবানন সীমান্তে ইসরাইলের সঙ্গে হিজবুল্লাহর এসব হামলা-পাল্টাহামলায় গাজার যুদ্ধ বিস্তৃত হয়ে পড়ার ঝুঁকি তৈরি হচ্ছে।

ইসরাইলে নতুন করে ড্রোন হামলা : ইসরাইলে নতুন করে ড্রোন হামলা চালানোর দাবি করেছে ইয়েমেনের হুথি বিদ্রোহীরা। এমনকি হামলায় ইসরাইলি ঘাঁটি এবং বিমানবন্দরের কার্যকলাপ সাময়িকভাবে বন্ধ হয় বলেও দাবি তাদের। অবশ্য ইরান সমর্থিত এই গোষ্ঠীর হামলার দাবি সম্পর্কে কোনো মন্তব্য করেনি ইসরাইল। মঙ্গলবার এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা এএফপি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইয়েমেনের ইরান-সমর্থিত হুথি বিদ্রোহীরা বলেছে, তারা সোমবার ইসরাইলে নতুন করে ড্রোন হামলা চালিয়েছে। হুথিরা বেশ শক্তিশালী এবং তারা আরব উপদ্বীপের দক্ষিণে অবস্থিত দরিদ্র এই দেশটির বেশ বড় অংশ নিজেদের দখলে রেখেছে। হুথি বিদ্রোহীরা বেশ জোর দিয়ে বলেছে, তাদের চালানো সর্বশেষ এই হামলা ইসরাইলি সামরিক ঘাঁটি এবং বিমানবন্দরগুলোর কার্যকলাপ সাময়িকভাবে বন্ধ করে দিয়েছে।

হুথি গোষ্ঠীর সামরিক মুখপাত্র ইয়াহিয়া সারি সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম এক্সে বলেছেন, ‘ইয়েমেনের সশস্ত্র বাহিনী দখলকৃত অঞ্চলে ইসরাইলি শত্রুদের বিভিন্ন সংবেদনশীল লক্ষ্যবস্তুতে গত কয়েক ঘণ্টায় ড্রোন হামলা চালিয়েছে। তাদের এই হামলার ফলস্বরূপ ইসরাইলি ঘাঁটি এবং বিমানবন্দরের কার্যকলাপ কয়েক ঘণ্টার জন্য বন্ধ ছিল।’ ইয়াহিয়া সারি এক্সে আরও বলেছেন, যতক্ষণ না গাজায় আমাদের ভাইদের বিরুদ্ধে ইসরাইলের নৃশংস আগ্রাসন বন্ধ না হচ্ছে হুথি বাহিনী ফিলিস্তিনি জনগণের সমর্থনে আরও গুণগত সামরিক অভিযান চালিয়ে যাবে।

তথ্যসূত্রঃসময়ের আলো

আরো পড়ুন

মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ সংবাদসমূহ

বিশেষ সংবাদ