পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে...
মঙ্গলবার, জুন ১৮, ২০২৪

হরতাল-অবরোধে পরিবহণ খরচ বাড়ায় বিপাকে শীতকালীন সবজি চাষী ও ব্যবসায়ীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক, (গোবিন্দগঞ্জ) গাইবান্ধা:
হরতাল ও অবরোধের কারণে পরিবহণ ব্যয় বেড়ে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছেন গাইবান্ধা জেলার সবচেয়ে বেশি সবজি উৎপাদনের এলাকা গোবিন্দগঞ্জের শীতকালীন সবজি চাষী ও ব্যবসায়ীরা। এ কারণে ব্যাপক সবজি উৎপাদিত হলেও সঠিক দাম পাচ্ছেন না তারা। সবজির পাশাপাশি অন্যান্য ফসলের কৃষক ও পাইকারদেরও একই অবস্থা। শুধু পরিবহন ব্যয় বৃদ্ধিই নয়, পরিবহণের ক্ষেত্রে নানা ধরণের বিড়ম্বনার শিকার হওয়ায় হাট-বাজারগুলোতে পাইকাররা আসছেন অনেক কম। এর ফলে উত্তরাঞ্চলের বিখ্যাত সবজির মোকাম হিসেবে পরিচিত গোলাপবাগ হাটসহ উপজেলার বিভিন্ন হাটে শীতকালীন শাক-সবজির ব্যাপক দরপতন হয়েছে।

স্থানীয় চাষী ও ব্যবসায়ীরা জানান, আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় চলতি রবি মৌসুমে উপজেলার বিস্তীর্ণ এলাকায় হয়েছে নানান ধরনের সবজির চাষ। তাই স্থানীয় হাট-বাজারগুলোতে এখন শীতকালীন সবজির ব্যপক সমাগম ঘটেছে। সকাল থেকেই গোবিন্দগঞ্জ পৌর বাজারে মুলা, বরবটি, ফুলকপি, বাঁধাকপি, লাউ, শিম, পাতা-পেঁয়াজসহ নানা জাতের শীতকালীন সবজি কৃষদের কাছ থেকে কিনে স্তুপ দিয়েছেন পাইকার ও ব্যবসায়ীরা। কৃষকের কাছ থেকে কেনা এসব সবজি ট্রাকে করে পাইকাররা রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় সরবরাহ করে থাকেন। কিন্ত গত একমাস ধরে হরতাল অবরোধ চলমান থাকায় ট্রাক মালিকরা ঝুঁকির কারণে ট্রাক ভাড়া বাড়িয়ে দিয়েছেন। এর ফলে স্থানীয় ব্যাপারী ও বাইরে থেকে আসা ব্যবসায়ীরা মালামাল পাঠানোর ক্ষেত্রে বেশি টাকা খরচ করতে বাধ্য হচ্ছেন। এ জন্যে পাইবারীররা কম পরিমাণে শাক-সবজি ক্রয় করছেন। এতে বাজারে আনা সবজির ন্যায্যমূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন কৃষকরা। প্রতিদিনই ব্যাপক দরপতন হচ্ছে তাদের উৎপাদিত আগাম সব ধরনের শীতকালীন শাক-সবজির।

আগাম উৎপাদিত শীতকালীন সবজির দাম নি¤œমুখী হওয়ার অভিযোগ করে দরবস্ত ইউনিয়নের চরপাড়া গ্রামের সাইফুল ইসলাম বলেন, বাজারে ক্রেতা কম আসায় শাক-সবজির দাম কমে গেছে। যে পাইকার বা ক্রেতা আসেন তারা হরতাল-অবরোধের জন্য পরিবহণ ব্যয় বেড়ে যাওয়ায় তারাও আগের মত শাক-সবজি কিনছেন না। এ কারণে আমরা বেশ বেকায়দায় পড়েছি।

গোলাপবাগ হাটের পাইকার সাজু মিয়া ও স্থানীয় ব্যবসায়ী আব্দুর রহিম জানান, সবজি পরিবহনে ট্রাকপ্রতি ভাড়া বেড়েছে পাঁচ থেকে ছয় হাজার টাকা। এ ছাড়াও সবজি পাঠানো বেশ ঝুঁকিপূর্ণ। এখান থেকে পাঠানো সবজিবোঝাই ট্রাক গন্তব্যে পৌঁছা নিয়েও রয়েছে আশঙ্কা। সবজি পরিবহণে সুষ্ঠু ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে আরও যতœবান হতে স্থানীয় প্রশাসনের প্রতি দাবি সবজি ব্যবসায়ীদের।

গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা কৃষি অফিসার সৈয়দ রেজা-ই-মাহমুদ জানান, এই এলাকার উৎপাদিত সবজি স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে দেশের বিভিন্ন জেলায় সরবরাহ হয়ে থাকে। চলতি মৌসুমে শীতকালীন সবজি উৎপাদনে চাষীদের প্রযুক্তিগত সহায়তা ও পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। ক্ষতি পুষিয়ে উঠতে আগামীতেও কৃষকদের সব ধরনের সবজি উৎপাদনে পরামর্শ ও সার্বিক সহায়তা প্রদান অব্যাহত থাকবে।

আরো পড়ুন

মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ সংবাদসমূহ

বিশেষ সংবাদ