পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে...
বৃহস্পতিবার, জুন ১৩, ২০২৪

গোবিন্দগঞ্জে বাঙ্গালি নদীর ভাঙ্গনে বিলীন হচ্ছে বসতবাড়ি কৃষিজমি বাজার ও সড়ক

নিজস্ব প্রতিবেদক, (গোবিন্দগঞ্জ) গাইবান্ধা:
গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার মধ্য দিয়ে বয়ে যাওয়া বাঙ্গালী নদীর ভাঙ্গনে বিলীন হচ্ছে বোনারপাড়া-গোবিন্দগঞ্জ ভায়া ত্রিমোহনী সড়কসহ বিশপখইড়, উত্তরপাড়া ও সোনাইডাঙ্গাসহ বেশ কয়েকটি গ্রাম। একই সাথে ভাঙ্গনের মুখে পড়েছে একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বাজারসহ পাশর্^বর্তী আরও চারটি গ্রামের শতাধিক বসতবাড়ী। বর্ষা মৌসুমে পানি উন্নয়ন বোর্ড বস্তা ফেলে সাময়িকভাবে ভাঙ্গনরোধ করলেও এলাকাবাসী স্থায়ীভাবে ভাঙ্গন প্রতিরোধের দাবী করেছেন।

উপজেলার মধ্যদিয়ে প্রবাহিত করতোয়া ও বাঙালি নদী। করতোয়া নাম নিয়ে দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলার মধ্যদিয়ে গোবিন্দগঞ্জে প্রবেশ করে। এরপর নদীটি বাঙ্গালী নাম নিয়ে বগুড়া জেলায় প্রবেশ করে। বর্তমানে বাঙ্গালীর ভাঙ্গনে উপজেলার রাখালবুরুজ ইউনিয়নের উত্তরপাড়া, বিশপখইর, সোনাইডাঙ্গা, মহিমাগঞ্জের বালুয়া, বোচাদহসহ ১০টি গ্রাম ক্রমেই বিলীন হচ্ছে। ইতোমধ্যে এসব গ্রামের কৃষিজমি, ঘরবাড়ী, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বাজারসহ গোবিন্দগঞ্জ-বোনারপাড়া ভায়া ত্রিমোহনী সড়কের বেশ কিছু অংশ ভাঙ্গনের মুখে পড়েছে। বন্যায় ভাঙ্গনের সময় স্থানীয়দের দাবির প্রেক্ষিতে তাৎক্ষণিক জিও ব্যাগ ফেলে ভাঙ্গন ঠেকালেও সড়কের প্রায় দেড় কিলোমিটার এখন চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়ে আছে। এছাড়াও এই নদীর ভাঙ্গনে রাখালবুরুজ ইউনিয়নের নয়াবাজারসহ কয়েকটি গ্রামের কৃষিজমি, বাড়ীঘর বিলীন হয়ে গেছে। এখন হুমকির মুখে পড়েছে প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন ও মসজিদসহ বিভিন্ন স্থাপনা।

বিশপখইড় গ্রামের সামসুল ইসলাম বলেন, নদী এই গ্রাম থেকে অনেক দূরে ছিল। কিন্ত এখন ভাঙ্গতে ভাঙ্গতে অনেক কাছে চলে এসেছে। প্রতিবছরই বিলীন হচ্ছে ঘরবাড়ী ও রাস্তাঘাট। নবনির্মিত ত্রিমোহনী ব্রীজ ব্যবহার করে গোবিন্দগঞ্জ থেকে বোনারপাড়া যাতায়াতের সহজ সড়কটির বেশিরভাগ অংশ ভেঙ্গে যাওয়ায় চলাচলে দূর্ভোগ-ভোগান্তি বেড়েছে।

উত্তরপাড়ার সোলাইয়মান আলী ভাঙ্গনরোধে স্থায়ী ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়ে বলেন, ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্থ সড়কটির গুরুত্ব বিবেচনায় নিয়ে তা সংস্কারে সংশ্লিষ্টদের উদ্যোগ গ্রহণ জরুরি।

গাইবান্ধা পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তা অলিদ আহসান রিয়ন জানান, নদী ভাঙ্গনরোধে কাজ করছে পাউবো। নির্দিষ্ট সময়ে কাজ সম্পন্ন হলে ভাঙ্গন সমস্যা আর থাকবে না।

আরো পড়ুন

মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ সংবাদসমূহ

বিশেষ সংবাদ